Girl in a jacket

ময়মনসিংহে আড়াই সহস্রাধিক করোনায় সনাক্ত, মৃত্যু ৩১, আক্রান্ত মৃত্যু ঝুঁকি আতংক সবই বাড়ছে

0

করোনাভাইরাসের হটসপট এখন ময়মনসিংহ। আক্রান্ত, মৃত্যু, ঝুঁকি, আতংক এই বিভাগে সবই বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। সাধারণ ছুটির শেষ দিন ২৩ জুন ময়মনসিংহ বিভাগে করোনায় আক্রান্ত ছিলো আড়াই হাজার ছাড়িয়ে এবং ৩১ জন মৃত্যুবরণ করেছে। এ পর্যন্ত ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় ২৭ হাজার ৪৮৮টি নমুনা পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। অকারণে ঘুরাঘুরি, শপিংসহ সবকিছু খুলে দেয়ার প্রেক্ষিতে অবাধ চলাচলের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বলে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণ জানান। গণপরিবহণ ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য চলছে এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত না করে করোনায় আক্রান্ত রোগীরা বাইরে ঘুরাঘুরি করার প্রেক্ষিতে করোনা সংখ্যা দিন দিন ব্যাপক হারে বাড়ছে। দ্রুত আক্রান্তের লাগাম ধরে টানতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে জনগণকে বাধ্য করা ছাড়া কোনো পথ খোলা নেই বলে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানান।
ময়মনসিংহ বিভাগীয় পরিচালক স্বাস্থ্য ডাঃ মোঃ আবুল কাশেম জানান, এনিয়ে ময়মনসিংহ বিভাগে মোট ২৭ হাজার ৪৮৮টি নমুনা পরীক্ষায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২হাজার ৫৭৬ জন এবং মারা গেছে ৩১জন। করোনায় আক্রান্ত জেলাওয়ারী ময়মনসিংহে ১ হাজার ৪৭১ জন, নেত্রকোনায় ৩৮৪জন, জামালপুরে ৫০৩ জন, এবং শেরপুরে ২১৮ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯৪৯ জন। মোট চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৫৮৩জন। এনিয়ে বিভাগে সর্বমোট মারা গেছেন ৩১ জন। এরমধ্যে ময়মনসিংহ জেলায় ১৮ জন, নেত্রকোনা জেলায় ৩ জন, জামালপুর জেলায় ৭ জন এবং ও শেরপুর জেলায় ৩ জন।
কেন্দ্রীয় বি.এম.এ করোনা মনিটরিং সেল ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রতিনিধি, জেলা বিএমএ সভাপতি ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ মতিউর রহমান ভূঁইয়া জানান, গণপরিবহণ ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য চলছে এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত না করে করোনায় আক্রান্ত রোগীরা বাইরে ঘুরাঘুরি করার প্রেক্ষিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন ব্যাপক হারে বাড়ছে। দ্রুত আক্রান্তের সংখ্যা কমাতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে জনগণকে বাধ্য করা ছাড়া আর কোনো পথ খোলা নেই।
ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন ডা. এবিএম মসিউল আলম জানান, ২৩ জুন ময়মনসিংহ এস.কে হাসপাতালে চিকিসাধীন রোগী ৮ ঘন্টার ব্যবধানে দুইজন মৃত্যুবরণ করেছেন। তারা হলেন, ফুলবাড়ীয়া উপজেলার দেবগ্রামের রঞ্জিত কুমার দাস (২৮) মারা যান দুপুর আড়াইটায়। গফরগাঁও পৌর এলাকার স্বপন চন্দ্র (৫৫) মারা যান সকাল সাড়ে ৮টায়।
সিভিল সার্জন আরো জানান, ময়মনসিংহ বিভাগে ২২ জুন ১১০ জনের করোনা পজিটিভ হয়েছে। ময়মনসিংহ জেলায় ৭৭ জন, এরমধ্যে ফলোআপ ৫জন। শেরপুর জেলায় ৯ জন, নেত্রকোনা জেলায় ৪ জন এবং জামালপুর জেলায় ২০ জন রয়েছে। সিভিল সার্জন আরো জানান, ময়মনসিংহ জেলায় আক্রান্ত ৭২ জনের মধ্যে সিটি কর্পোরেশন ও সদরে-২৪ জন, মুক্তাগাছা-২৬ জন, ভালুকা-১৩ জন, ত্রিশাল-৩ জন, গৌরীপুর-২ জন, ফুলপুর-১ জন, তারাকান্দা-১ জন, হালুয়াঘাট-১ জন ও নান্দাইল-১ জন।
জামালপুর জেলার ২০ জনের মধ্যে সদর-১১ জন, ইসলামপুর-২ জন, মাদারগঞ্জ-২ জন ও বকসিগঞ্জ-৫ জন। শেরপুর জেলায় ৯ জনের মধ্যে সদর-৬ জন, নালিতাবাড়ি-১ জন, নকলা-১ জন ও ঝিনাইগাতি-১ জন। নেত্রকোনা জেলার দূর্গাপুর-৪ জন রয়েছে।

Share.

Comments are closed.