Girl in a jacket

ভালুকা পৌরসভার টিএন্ডটি রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণ কাজে ধীরগতি : চরম দুর্ভোগে পথচারী

0

ময়মনসিংহের ভালুকা পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড অতি জনগুরুত্বপূর্ণ টিএনটি সড়কটির মাঝখানে কিছু অংশ আরসিসি ড্রেন নির্মাণের পর দীর্ঘ প্রায় একবছর ধরে রহস্যজনক কারণে রাস্তা সংস্কার কাজ বন্ধ রাখছেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ফলে এই রাস্তা দিয়ে চলাচলরত যানবাহন ও পথচারীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
জানা যায়, বাংলাদেশ সরকার ও আইডিএ’র অর্থায়নে মিউনিসিপেল গর্ভানেন্স এন্ড সার্ভিসেস প্রজেক্টের আওতায় ভালুকা পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে ৫৭০ মিটার ঢালাই রাস্তা ও ৩৮০ মিটার আরসিসি ড্রেন নির্মানের জন্য চার কোটি ২৫ লাখ ৮২ হাজার ১১০ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স মহিবুল হক কাজটি করার জন্য ১০ মার্চ/১৯ তারিখে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন। কাজটি দু’টি অংশে বিভক্ত করে এক বছর মেয়াদে শেষ করার কথা থাকলেও অতিরিক্ত প্রায় চার মাস চলে যাচ্ছে। কিন্তু ভালুকা-বিরুনীয় সড়কে ৫৫০ মিটার ঢালাই রাস্তা ও ৩৮০ মিটার ড্রেনের কাজ অসমাপ্ত রয়েছে। আর অপর অংশ ৭ নম্বর ওয়ার্ড টিএন্ডটি রোডে রাস্তার সংস্কার কাজ করা তো দূরের কথা রাস্তার মাঝখানে সামান্য আরসিসি ড্রেনের কাজ করে বন্ধা রাখা হয়েছে দীর্ঘ ৮ মাস ধরে। এতে এই রাস্তা দিয়ে চলাচলরত যানবাহন ও পথচারীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান অর্ধেক কাজ করেই চলাচলে অযোগ্য করে ফেলে রাখায় এলাকাবাসি ও পথচারীদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
সরেজমিন স্থানীয় বাসিন্দা ও পথচারীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণ কাজে নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহার করে যথেষ্ট অনিয়ম করা হচ্ছে। আর অপরদিকে কাজের ধীরগতির কারণে দীর্ঘ প্রায় এক বছর ধরে চরম দূর্ভোগের মধ্যদিয়ে তাদের চলাচল করতে হচ্ছে। পৌরকর্তৃপক্ষের উধাসিনতার কারণে জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে আছে দীর্ঘদিন। তাছাড়া পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় সব’টি রাস্তায় বেহাল অবস্থা বিরাজ করলেও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের যেন কোন মাথা ব্যাথা নেই। এলাকাবাসি অতিদ্রæত রাস্তাগুলো সংস্কার করে জনসাধারণের চলাচলে দুর্ভোগ লাগবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পৌরকর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।


ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স মহিবুল হক ও ওই কাজের তদারকি কর্মকর্তা পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশরী মামুন অর রশিদের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার ফোন দিলে রিসিভ না করায় তাদের বক্তব্য দেয়া সম্ভব হয়নি।
এ ব্যাপারে পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মুন্নুর আহমেদের মোবাইল নম্বরে ফোন দিলে তিনি পরে কথা বলবেন বলে লাইনটি কেটে দেন।
পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনে সম্ভব্য মেয়র প্রার্থী, সমাজ সেবক বিএনপি নেতা আলহাজ্ব হামেত খান জানান, পৌরসভার অতি জনগুরুত্বপূর্ণ টিএনটি সড়কটি এভাবে রাস্তার মাঝখানে কিছু অংশ ড্রেন করে দীর্ঘদিন ধরে ফেলে রাখা খুবই অমানবিক কাজ। প্রায় প্রতিদিনই আমাকে বিভিন্ন পথচারী এ ব্যাপারে তাদের চলচলে দুুর্ভোগের কথা বলছেন। তিনি অতি দ্রæত রাস্তাটির সংষ্কার কাজ শেষ করে যানবাহন ও পথচারীদের চলাচলে উপযোগী করে দেয়ার জন্য পৌরকর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন।
পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহাবউদ্দিন খান জানান, রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণ কাজটি শেষ করার জন্য ঠিকাদারকে বার বার তাগিদ দেয়ার পরও কি কারণে শেষ করছেন না তা বলতে পারছিনা।
ভালুকা পৌরসভার মেয়র ডা.একেএম মেজবাহ উদ্দিন কাইয়ূম ঢাকায় অবস্থান করায় এবং একাধিকবার কল করার পরও মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়ায় তার মন্তব্যও দেয়া সম্ভব হয়নি।

Share.

Comments are closed.