Girl in a jacket

ভালুকায় প্রতিপক্ষের হামলায় স্কুলছাত্রীসহ ৫ নারী আহতের ঘটনায় বিচার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

0

ময়মনসিংহ ভালুকায় কাঁঠাল পারতে বাঁধা দেয়ায় প্রতিপক্ষরা কাতলামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রী সুমি আক্তারসহ (১৪) পরিবারের ৫ মহিলাকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় বিচার দাবীতে শনিবার (২০ জুন) দুপুরে ভালুকা প্রেসক্লাবে সাংবাদ সম্মেলন করেছেন ওই স্কুলছাত্রীর পরিবারটি।
সাংবাদিক সম্মেলনে উপজেলার ডাকাতিয়া ইউনিয়নের কাতলামারী গ্রামের জয়নাল আবেদীনের স্ত্রী আহত সুমির মা নুরজাহান বেগম জানান, গত ১৬ জুন বিকেলে তাদের জমির গাছ থেকে প্রতিবেশী হালিম শিকদার ও হায়দার আলী গংরা জোর পূর্বক কাঁঠাল পেরে ভ্যানগাড়ি ভরে নিয়ে যাওয়ার সময় তার স্কুল পড়ূয়া মেয়ে সুমি আক্তারসহ পরিবারের অন্যরা বাঁধা দেয়। এ সময় হালিম শিকদারের লোকজন সুমিকে পিটিয়ে আহত করে। তাকে বাঁচাতে গেলে তিনিসহ ফাতেমা (৩২) সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া (১২) ও সখিনা আক্তার (৩৫) হামলায় আহত হন।


তিনি জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় আমার মেয়ে সুমি আক্তার ভালুকা ৫০ শয্যা সরকালী হাসপাতালে ভর্তি করা হলে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সুমিকে শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
সংবাদ সম্মেলনে সুমির চাচা তোফাজ্জল হোসেন জানান, ঘটনার সময় হালিম শিকদার ও হায়দার আলী গংরা তার ভাই মিজানের রান্না ঘরে আগুণ ধরিয়ে দিয়ে পুড়ে দেয়। প্রতিপক্ষরা সুমিকে প্রকাশ্যে মধ্যযোগীয় কায়দায় মারপিটের ঘটনাটি পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে এলাকায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। প্রতিপক্ষরা প্রভাবশালী হওয়ায় আতংকের মধ্যেদিয়ে দিন কাটাতে হচ্ছে বলে নির্যাতণের শিকার পরিবারটির অভিযোগ।
এ ব্যাপারে সুমির পিতা জয়নাল আবেদীন বাদি হয়ে আব্দুল হালিম শিকদার, আলী হায়দার, আব্দুর রশিদ শিকদার, রাসেল শিকদার ও রাজু শিকদারের নাম উল্লেখ করে ভালুকা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

Share.

Comments are closed.