Girl in a jacket

তারাকান্দায় শিশু সানজিদা হত্যা মামলায় গ্রেফতার ২

0

মো.জাকির হোসেন,ময়মনসিংহ প্রতিনিধি।
ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকায় আকন্দবাড়ীর পিছনের জঙ্গলে শাহজাহান আকন্দের মেয়ে সানজিদা আক্তার (৭) কে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে অপহরণকারীরা। এ ঘটনায় দু’জন কে গ্রেফতার করে ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪। গ্রেপ্তারকৃতরা হল- রামচন্দ্রপুর এলাকার আবুল হাসিম আকন্দের ছেলে ইয়াছিন আকন্দ (১৬) ও তারাকান্দা বাজারের বিকাশ এজেন্ট নিশীথ কুমার সিংহ। 
রবিবার (১৭ জানুয়ারি) ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪ কর্তৃক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল ইফতেখার উদ্দিন জানান, গত ১৫ জানুয়ারি শুক্রবার উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৪, ময়মনসিংহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে হত্যার বিষয়ে ছায়া তদন্ত শুরু করে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন পারিপার্শ্বিকতার বিচারও নিহতের বিভিন্ন বিষয়ে পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ করে  নিবিড় তদন্তপূর্বক র‌্যাব-১৪, ঘটনার রহস্য উন্মোচন করে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১৪, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা থানার হত্যা মামলায় জড়িত সন্দেহে ইয়াসিন আকন্দ (১৬) পিতাঃ মোঃ আবুল হাশিম আকন্দ,সাং- রামচন্দ্রপুর থানা তারাকান্দা জেলা-ময়মনসিংহ কে তারাকান্দা থানা এলাকা থেকে বিশেষ অভিযানের মাধ্যমে অদ্য ১৭ জানুয়ারি রবিবার দিবাগত রাত ১ ঘটিকার সময় গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। 
গ্রেপ্তারকৃত আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে সুপারী কুড়ানোর নাম করে ভিকটিম সানজিদা আক্তার কে তার বাড়ির পাশের জঙ্গলে নিয়ে ইয়াসিন আকন্দ এবং শাকিল  পিতা-টুটু পাগলা মিলে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরবর্তীতে ভিকটিমের বাবার নিকট তারাকান্দা বাজার বিকাশ এজেন্ট নিতিশ কুমার সিংহ (৫৭)  এর মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিশ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। মুক্তিপণের টাকা না পাওয়াতেই আটককৃত আসামি শিশু সানজিদা আক্তার কে হত্যা করার কথা স্বীকার করে।তার স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে নিতিশ কুমার সিংহ (৫৭) কেও গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-১৪।
র‍্যাব-১৪ অধিনায়ক আরো জানান, মূলত টাকার জন্যই ইয়াছিন ও শাকিল মিলে শিশুটিকে অপহরণ করে। কিন্তু কান্নাকাটি করায় অপহরণের পরপরই তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে তারা। পরে ইয়াছিনকে গ্রেপ্তারের পর তার স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে বিকাশ এজেন্ট নিশীথ কুমারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পলাতক আরেক ঘাতক শাকিলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Share.

Comments are closed.