Girl in a jacket

গফরগাঁও হুরমত উল্লাহ কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম ও দুনীর্তির অভিযোগ

0

স্টাফ রিপোর্টার, গফরগাঁও থেকেঃ-
ময়মনসিংহের গফরগাঁও হুরমত উল্লাহ কলেজের অধ্যক্ষ মানিক মিয়ার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে অবৈধ্যভাবে পেছনের তারিখ উল্লেখ করে মোটা অঙ্কের অর্থিক সুবিধা নিয়ে ৬ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় কলেজের গর্ভনিং বডির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ফজলুর রহমান ঘুষ ও দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের পরিপেক্ষিতে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ময়মনসিংহের বিদ্যালয় পরিদর্শক শেখ হাবিবুর রহমানকে। অভিযোগ প্রাথমিক ভাবে তদন্তে প্রমানিত হওয়ায় কলেজের অধ্যক্ষসহ অন্যান্য শিক্ষকরা ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযোগকারীকে হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কলেজটিতে মানবিক, বিজ্ঞান, বানিজ্য এবং কারিগরি (বিএম) শাখা চালু দেখিয়ে ২০১৫ সালের তারিখ দিয়ে পদার্থ, রসায়ন, গনিত, কৃষি বিজ্ঞান, জীব বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ৬টি পদে ৬জন শিক্ষক পেছনের তারিখ দিয়ে প্রায় ৫০লক্ষ টাকা নিয়ে কলেজের অধ্যক্ষ শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছেন। অভিযোগে আরো জানা যায়, হুরমত উল্লাহ কলেজের অধ্যক্ষ ও কতিপয় গর্ভনিং বডির কিছু সদস্য ও কলেজের অন্যান্য শিক্ষকদের সাথে যোগসাজস করে ভূয়া জাল- জালিয়াতি কাগজপত্র তৈরী করে প্রত্যেক শিক্ষকদের কাছ থেকে মোটা অংকের আর্থিক সুবিধার বিনিময়ে, সরকারী বিধি লংঘন করে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।
অভিযোগকারী ফজলুর রহমান বলেন, আমি আমার পিতার নামে হুরমত উল্লাহ কলেজ নামে ১৯৯৩ সালে এলাকার জনগনের সহায়তায় যশরা গ্রামে অত্র কলেজটি প্রতিষ্ঠা করি। কলেজের অধ্যক্ষ মোটা অংকের টাকা নিয়ে এবং বড় ধরনের ঘুঘ দুর্নীতি করে অদক্ষ ও মেধাহীন এবং দুষ্টু লোক শিক্ষক নিয়োগ দেয়। যা কলেজের ভাবমুর্তি নষ্ট হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন। কলেজের অধ্যক্ষ মানিক মিয়া লাল ঘোড়া দাবরিয়ে অদক্ষ ও মেধাহীন শিক্ষক লুলু আফরোজা হিসাব বিজ্ঞান, মাসুদ আহমেদ কৃষি শিক্ষা, মাহিরুল ইসলাম পদার্থ বিজ্ঞান, আতাউল্লাহ রসায়ন, শাহরিন মুস্তারি রোমা জীব বিজ্ঞান, রাফিয়াতুল রিফা গনিতসহ ৬জন শিক্ষক ২০/০৮/২০১৫ইং সালের তারিখ দেখিয়ে শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছেন যা সস্পূর্ন অবৈধ্য এবং জাল জালিয়াতি। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, কলেজে ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় হিসাব বিজ্ঞান বিযয়ে উপজেলার যশরা গ্রামের রুবেল মিয়ার কাছ থেকে ৯০ হাজার টাকা নেয় কলেজের অধ্যক্ষ মানিক মিয়া। চাকুরি দেওয়ার আশ^াসে তাকে দিয়ে এক বছর বিনা বেতনে কলেজে ক্লাস করানো হয়। পরবর্তীতে তাকে নিয়োগ না দিয়ে ভালুকা উপজেলার এক মহিলাকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে অবৈধ্য ভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়। অবৈধ্য শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে নিয়োগ কমিটিতে যাদের নাম উল্লেখ দেখিয়েছেন তারা হলেন, গফরগাঁও সরকারী কলেজের অধ্যাপক মাইনুউদ্দিন ও হাবিবুর রহমান, তারিখ ২০/০৮/২০১৫ইং। নিয়োগ কমিটির দুইজন শিক্ষক বলেন, হুরমত উল্লাহ কলেজের অধ্যক্ষ মানিক মিয়া ও কলেজের শিক্ষক হারুন, আহাদ ও নুরুল ইসলামসহ ক্ষমতাসিনদলের স্থানীয় কয়েক জন নেতা সরকারী কলেজ হোষ্টেল থেকে ২জনকে ডেকে নিয়ে রাতের অন্ধকারে ভয়ভীতি দেখিয়ে কাগজে স্বাক্ষর দিতে বাধ্য করেন।
ময়মনসিংহের কলেজ পরিদর্শক শেখ মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, হুরমত উল্লাহ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ফজলুর রহমান এর ১১/০২/২০১৯ইং তারিখের অভিযোগের প্রেক্ষিতে অধ্যক্ষ কর্তৃক অবৈধ ভাবে শিক্ষক নিয়োগ বানিজ্যকরনে আনীত অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে কলেজটি তদন্ত করার জন্য গফরগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য নির্দেশ করা হয়েছে। পরে গফরগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে বিযয়টি সঠিক তদন্তের জন্য ৭ কার্ষদিবসের মধ্যে যথাযথ প্রতিবেদন দেয়ার জন্য নির্দেশ দেন।
উপজেলা কৃষি অফিসার দ্বীপক কুমার পাল জানান, গত ১২মে নোটিশের মাধ্যমে তদন্তের জন্য বাদী-বিবাদী বক্তব্য এবং কলেজের অধ্যক্ষ মানিক মিয়ার বিরুদ্ধে অবৈধ্যভাবে জাল-জালিয়াতি করে ৬জন শিক্ষক নিয়োগ ও তার ব্যাপক অনিয়ম, ঘুষ দুর্নীতির তথ্য- প্রমান তুলে ধরেন কলেজের গভনিং বডির সদস্য ফজলুর রহমান। অভিযোগের বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সত্যতা পাওয়া গেছে। তিনি আরো বলেন, প্রয়োজনে আরো অধিকতর তদন্ত করা হবে। তবে এদের কারো চাকুরি থাকবেনা। অচিরেই তিনি অভিযোগের তথ্য প্রমানসহ প্রতিবেদন দাখিল করবেন ময়মনসিংহের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, চেয়ারম্যান বরাবর।
অভিযুক্ত অধ্যক্ষ মানিক মিয়া বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে তা মিথ্যা। সরকারী নিয়ম মেনে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। আর আমি কাউকে হুমকি দিইনি। এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, ময়মনসিংহের শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান গফরগাঁও উপজেলা কৃষি অফিসারের মাধ্যমে আমাকে নোটিশ দিয়েছেন। এ নিয়ে অনেক ঝামেলা হচ্ছে। তবে আমি কোন অনিয়ম করেনি।

Share.

Comments are closed.