Girl in a jacket

করোনাকালে ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল ভোগ করছি আমরা: মেয়র টিটু

0

ময়মনসিংহ জেলা প্রতিবেদক:-

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. ইকরামুল হক টিটু বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১১ বছর পূর্বে বাংলাদেশকে ডিজিটাল প্রতিষ্ঠা শুরু করেছিলেন। বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংকট পরিস্থিতিতে আমরা সবাই অনলাইন প্ল্যাটফর্মে সমবেত হওয়ার মাধ্যমে সেটিরই সুফল ভোগ করছি। অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে আমরা দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছি। এর জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ হাসিনার প্রতি বাঙ্গালি জাতি চিরদিন ঋণী থাকবে।’

মেয়র টিটু বলেন, ‘এই সংকটের সময়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আমাদের চলতে হচ্ছে। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতে ডিজিটাল বাংলাদেশের কারণেই আমরা অনলাইন প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হতে পেরেছি। যদি সেটি না হতো তাহলে আমাদের ঘরে বসে কারোর সঙ্গে যোগাযোগ ছাড়া সময় কাটাতে হতো। অথবা ঝুঁকি নিয়ে আমাদের মাঠে-ময়দানে কাজ করতে হতো।’

২৫ জুলাই শনিবার রাতে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) আয়োজনে জুম ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে করোনা সচেতনতামূলক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মসিক মেয়র ইকরামুল হক টিটু।

মসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সরকারি আনন্দ মোহন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নারায়ণ চন্দ্র ভৌমিক, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম, বিদ্যাময়ী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসিমা আক্তার।

স্বাগত বক্তব্য দেন- মসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা রাজীব কুমার সরকার। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা শেখ মহাবুল হোসেন রাজীব।

উদ্বোধনের পর ময়মনসিংহ জিলা স্কুল ও প্রিমিয়াম আইডিয়াল স্কুলের মধ্যকার বিতর্ক প্রতিযোগিতায় ময়মনসিংহ জিলা স্কুল বিজয়ী হয়। এতে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হন বিজয়ী দলের দলনেতা অর্নব দাস।

উল্লেখ্য, মসিকের আয়োজনে অনলাইনে করোনা সচেতনতামূলক এ সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিতর্ক, কুইজ ও রচনা এই তিন বিভাগে ময়মনসিংহের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নিতে পারবেন।

Share.

Comments are closed.